ওয়ার্ডপ্রেস যেকারণে ব্লগিংয়ের জন্য সেরা প্ল্যাটফর্ম
ওয়ার্ডপ্রেস যেকারণে ব্লগিংয়ের জন্য সেরা প্ল্যাটফর্ম

ওয়ার্ডপ্রেস কি দারুণ একটা নাম। ব্লগিংয়ের জন্য সেরা প্ল্যাটফর্ম হিসেবে এটা সবার কাছে পরিচিত। আমরা ব্লগাররা, এই নামটি খুব পছন্দ করি। কারণ, আমরা বেশিরভাগই ওয়ার্ডপ্রেসকে আমাদের ব্লগিং সিএমএস হিসাবে ব্যবহার করি।

আপনি কি জানেন ওয়ার্ডপ্রেস কি?

আমার প্রথম ব্লগটি শুরু করার আগে আমি WordPress সম্পর্কে কিছুই জানতাম না। যদিও আমি এখন এটি সম্পর্কে অনেক কিছু জানি। প্রাথম দিক থেকে আমি মনে করতাম এটি খুবই জটিল একটা মাধ্যম। এর মাধ্যমে কাজ করার জন্য আমাকে কোডিং জানতে হবে মনে করতাম।

যাইহোক, এখন আমি জানতে পেরেছি যে, ওয়ার্ডপ্রেস ব্লগিংয়ের জন্য সেরা প্ল্যাটফর্ম এবং একমাত্র জনপ্রিয় প্লাটফর্ম। এখানে কাজ করার জন্য কোন কোডিং জানার প্রয়োজন নেই এবং এটি সবচেয়ে সহজ সিএমএস। এই পোস্টে, আমি আপনাকে ওয়ার্ডপ্রেস সম্পর্কে অনেক কিছু বলব।

ওয়ার্ডপ্রেস কী?

এটি একটি সিএমএস (কন্টেন্ট ম্যানেজমেন্ট সিস্টেম) যা ব্লগিংয়ের জন্য সবচেয়ে জনপ্রিয় প্ল্যাটফর্ম। সুতরাং আপনি দেখতে পাবেন যে, বেশিরভাগ ব্লগার ব্লগিংয়ের জন্য WordPress পছন্দ করে। ওয়ার্ডপ্রেসে ব্লগিংয়ের সহজতা এটিকে এত জনপ্রিয় করে তুলেছে। আপনি যদি ওয়ার্ডপ্রেসে ব্লগ করেন, তবে কোডিং সম্পর্কে আপনাকে কিছু শিখতে হবে না।

আমি কোডিংয়ে ভয় পাই, তাই আমি আমার সমস্ত ব্লগের জন্য ওয়ার্ডপ্রেস বেছে নিয়েছি।এখানে হাজার হাজার ফ্রি এবং পেইড থিম রয়েছে। যা আপনার ইচ্ছা অনুযায়ী ব্যবহার করে আপনার ব্লগটি ডিজাইন করতে পারে।এছাড়াও, ওয়ার্ডপ্রেসের জন্য অনেকগুলো প্লাগইন রয়েছে। যা ব্যবহার করে আপনার ওয়েবসাইটে স্বয়ংক্রিয়ভাবে বিভিন্ন কাজ সম্পাদন করতে পারেন।

ওয়ার্ডপ্রেস যেকারণে ব্লগিংয়ের জন্য সেরা প্ল্যাটফর্ম
Image source: Pixabay

সুতরাং আপনি যদি কোনও ব্লগ শুরু করার ইচ্ছা করেন, তবে আপনার ব্লগিংয়ের জন্য সেরা প্ল্যাটফর্ম হচ্ছে ওয়ার্ডপ্রেস। অথবা আপনি যদি অন্য প্ল্যাটফর্ম ব্যবহার করে ব্লগিং করেন, তবে আপনার যত তাড়াতাড়ি সম্ভব ওয়ার্ডপ্রেসে স্যুইচ করা উচিত।

সত্যিই ওয়ার্ডপ্রেসে ব্লগ শুরু করা কয়েক মিনিটের ব্যাপার। আপনাকে কেবল একটি ডোমেইন ও হোস্টিং কিনে নিতে হবে। ডোমেইন এবং হোস্টিং সংগ্রহ করার পরে আপনি কয়েক মিনিটের মধ্যে একটা ওয়ার্ডপ্রেস দিয়ে ওয়েবসাইট করতে পারেন।

তবে যে বিষয়টি এখানে গুরুত্বপূর্ণ তা হচ্ছে সেরা একটা হোস্টিং কোম্পানি বাঁচাই করা। একটা হোস্টিং আপনার সাইটের জন্য মৌলিক উপাদান। সেরা ডোমেইন ও হোস্টিং যদি যাচাই করতে আমি আপনাকে “HostGator” “Namecheap” বা “BlueHost” এর ডোমেইন ও হোস্টিং ব্যবহার করার পরামর্শ দিচ্ছি।

আপনার ব্লগ বা ওয়েবসাইটের জন্য ডোমেইন ও হোস্টিং ক্রয় করে সফটাক্যুলাস এর মাধ্যমে ওয়ার্ডপ্রেস ইনস্টল করুন। সফটাক্যুলাস এক-ক্লিক ইনস্টলার টুল। যার মাধ্যমে এক মিনিটের মধ্যে ওয়ার্ডপ্রেস ইনস্টল করতে পারেন।

এখানে একটি বিষয় যুক্ত করা প্রয়োজন, তা হ’ল ওয়ার্ডপ্রেস.কম এবং ওয়ার্ডপ্রেস.আর্গ সম্পর্কিত আপনার কিছু বিভ্রান্তি থাকতে পারে! আসলে, আমি যখন ব্লগিং শুরু করি, তখন আমিও বিভ্রান্ত হয়ে পড়েছিলাম। পরে, আমি এটি সম্পর্কে একটি গভীর গবেষণার মাধ্যমে উভয় জিনিসকে আলাদা করতে পারলাম। এখন আমি আপনাকে এই সম্পর্কে পরিষ্কার ধারণা দিতে চাই।

WordPress.com বনাম WordPress.org

ওয়ার্ডপ্রেস.কম হ’ল ওয়ার্ডপ্রেসের নিজস্ব হোস্টিং প্ল্যাটফর্ম। যেখানে তারা সম্পূর্ণ ফ্রি-তে আপনার ওয়েবসাইটের ডাটা সংরক্ষণ করার সুবিধা দেয় এবং সাথে একটা ফ্রি ডোমেইনও দিয়ে থাকে। আপনি ওয়ার্ডপ্রেস.কম এ বিনামূল্যে ওয়েবসাইট তৈরি করতে পারেন, এখানে ওয়েবসাইটের ডোমেইন নামের সাথে একটি অতিরিক্ত ওয়ার্ডপ্রেস.কম যুক্ত করা হবে।

এর অর্থ হচ্ছে আপনি যদি আপনার ব্লগটি ফ্রি-তে শুরু করতে, চান তাহলে আপনাকে তাদের দেওয়া ফ্রি প্লাটফর্ম ব্যবহার করতে হবে।
অন্যদিকে, WordPress.org বিষয়ে জেনে নিই আসুন। হ্যাঁ, আমি  ব্লগিংয়ের জন্য সেরা প্ল্যাটফর্ম ওয়ার্ডপ্রেস.আর্গের কথা বলছি। ওয়ার্ডপ্রেস.ডট কম এবং ওয়ার্ডপ্রেস.অর্গ এর মধ্যে প্রধান পার্থক্য হলো ডোমেইন ও হোস্টিং।

সবচেয়ে বুদ্ধিমানের কাজ হচ্ছে নিজের ডোমেইন ও হোস্টিং ক্রয় করে তা দিয়ে একটা ওয়েবসাইট তৈরি করা। ফ্রি অংশের মধ্যে অনেককিছু সমস্যা রয়েছে। আপনি যদি অর্থোপার্জন করার উদ্দেশ্য ও প্রফেশনাল ব্লগার হিসেবে কাজ করতে চান। তাহলে অবশ্যই নিজের ডোমেইন ও হোস্টিং ক্রয় করে সাইট রেডি করুন।

আপনি নিজে ডোমেইন ও হোস্টিং ক্রয় করে “ওয়ার্ডপ্রেস.ডটকম” এক্সটেনশানটি সরাতে পারেন। এক্ষেত্রে আপনার সাইটের সব তথ্য আপনার হোস্টিংয়ে থাকবে। মূলত নিজের ডোমেইন ও হোস্টিং ক্রয় করে শুরু করাটা বুদ্ধিমানের কাজ হওয়ার পাশাপাশি এটি আপনার কাজকে অনেক বেশি সহজ করে দিবে।

নিজের ডোমেইন ও হোস্টিং ক্রয় করে ওয়েবসাইট তৈরি করলে, আপনি আপনার ওয়েবসাইটের সম্পূর্ণ নিয়ন্ত্রণ পেয়ে যাবেন। আপনার নিয়ন্ত্রণে আসার পরে আপনার ইচ্ছে মতো আপনি কাস্টমাইজড করতে পারবেন।

উপরের আলোচনা থেকে, আমি মনে করি যে, আপনি এখন ওয়ার্ডপ্রেসের উভয় সংস্করণ সম্পর্কে পরিষ্কার ধারণা পেয়েছেন।

ওয়ার্ডপ্রেস কেন ব্লগিংয়ের জন্য সেরা প্ল্যাটফর্ম?

ওয়ার্ডপ্রেস কেন ব্লগিংয়ের জন্য সেরা প্ল্যাটফর্ম তা এখন আপনার সাথে শেয়ার করব। আপনি ইতিমধ্যে কিছু কারণ খুঁজে পেয়েছেন এবং এখন আমি আরও সামনে যাচ্ছি আপনাকে বুঝানোর জন্য।

এটি ব্যবহার করা খুব সহজ:

ওয়ার্ডপ্রেস সিএমএস ব্যবহারের প্রথম কারণ হ’ল এটি ব্যবহার করা বেশ সহজ। সিএমএস পরিচালনার জন্য আপনাকে রকেট বিজ্ঞান শিখতে হবে না। ওয়ার্ডপ্রেসের ম্যানেজ করা ফেসবুক চালানোর মতোই সহজ। হ্যাঁ, আপনি যেভাবে ফেসবুক ব্যবহার করছেন তা ওয়ার্ডপ্রেসের সাথে প্রায় মিল রয়েছে। এর অর্থ আপনি যদি WordPress ব্যবহার করে ব্লগ করেন, তবে স্বাচ্ছন্দ্যের কারণে এটি খুব মজাদার হবে।

কোনও কোডিংয়ের প্রয়োজন নেই:

WordPress ব্যবহার করার আরেকটি কারণ হ’ল এর জন্য কোডিংয়ের জ্ঞানের প্রয়োজন নেই। হ্যাঁ, এটি সত্য যে কোডিং সম্পর্কিত কিছু জিনিস সম্পর্কে জানা ভাল, তবে আপনি কিভাবে কোডিং করে তা যদি না জানেন, তবে এটি সম্পর্কে উদ্বিগ্ন হওয়ার দরকার নেই। আপনি কোডিং ছাড়াই WordPress ব্যবহার করতে পারেন।

এটি বিনামূল্যে:

ওয়ার্ডপ্রেস একটি ওপেন সোর্স সিএমএস। সুতরাং এটি ব্যবহারের জন্য আপনাকে অর্থ প্রদানের প্রয়োজন হবে না। আপনি সম্পূর্ণ বিনামূল্যে সিএমএস রাখতে পারেন। সুতরাং আপনি যদি কেবল একটি ভাল হোস্টিং সংস্থা থেকে একটি হোস্টিং প্যাক কিনে থাকেন, তবে আপনি নিজের ওয়েবসাইটটি সুন্দরভাবে চালাতে পারেন।

নিয়মিত আপডেট:

যেহেতু এটি উন্মুক্ত উৎসযুক্ত, বিশ্বজুড়ে প্রচুর
ব্যবহারকারী রয়েছে, তাই এটি আরও উন্নত করতে কাজ করছে। এজন্য আপনি আপনার ওয়েবসাইট শুরু করতে বা সুরক্ষিত করতে ওদের আপডেটগুলি দেখতে পারেন।

হাজার হাজার থিম সহজে পাওয়া যায়:

ওয়ার্ডপ্রেস ব্যবহার করার ক্ষেত্রে, আপনি হাজার হাজার পাবেন। এখানে প্রচুর ফ্রি এবং প্রিমিয়াম WordPress থিম রয়েছে। এবং আপনি ইচ্ছে মতো একটি পছন্দের থিম ব্যবহার করতে পারেন। “ThemeForest” এ পাবেন সেরা সব প্রিমিয়াম থিম।

প্রচুর প্লাগইন পাওয়া যায়:

WordPress ব্যবহারের আরেকটি দুর্দান্ত সুবিধা রয়েছে। এখানে দারুণ দারুণ প্লাগিন রয়েছে, যা দিয়ে আপনার ওয়েবসাইটের সুন্দর্য আরও বেশি বৃদ্ধি করতে পারেন।

শেষ কথা:

আশাকরি, ওয়ার্ডপ্রেস সম্পর্কে আপনাকে দারুণ কিছু ধারণা দিতে সক্ষম হয়েছি। যা আপনার স্বপ্নের ওয়েবসাইটটি করতে আরও সহজ করে দিবে। সুতরাং আপনার নিজের একটি ব্লগ শুরু করুন এবং ব্লগিং উপভোগ করুন। শুভকামনা।

Leave a Reply