ফ্রিল্যান্সার হিসেবে পিপল পার আওয়ারে কিভাবে সফল হবেন
ফ্রিল্যান্সার হিসেবে পিপল পার আওয়ারে কিভাবে সফল হবেন

পিপল পার আওয়ার হচ্ছে একটা জনপ্রিয় ফ্রিল্যান্স মার্কেটপ্লেস। বিশ্বের যতগুলো ফ্রিল্যান্স মার্কেটপ্লেস রয়েছে তার মধ্যে পিপল পার আওয়ার হচ্ছে সবচেয়ে প্রফেশনাল এবং বিশ্বস্ত প্লাটফর্ম। আপনি এখানে ঘন্টা হিসেবে ক্লায়েন্টের কাজ করে আয় করতে পারবেন। যারা ঘন্টা হিসেবে কাজ করতে পছন্দ করেন, তাদের জন্য পিপল পার আওয়ার সেরা। আমি নিজেও এই মার্কেটপ্লেসটা পছন্দ করি।

ফ্রিল্যান্সার হিসেবে পিপল পার আওয়ারে কিভাবে সফল
ফ্রিল্যান্সার হিসেবে পিপল পার আওয়ারে কিভাবে সফল

এখানে সবচেয়ে কঠিন কাজ হচ্ছে নিজের প্রোফাইল ভেরিফাই করা। সঠিক তথ্য জমা দিতে না পারলে এই মার্কেটপ্লেসে আপনার প্রোফাইল ভেরিফাই করতে পারবেন না। প্রোফাইল ভেরিফাই করতে না পারলে এখানে কোন কাজের জন্য বিট করতে পারবেন না। সুতরাং এখানে নিজেকে ভেরিফাইড ফ্রিল্যান্সার হিসেবে প্রমাণ করতে আপনাকে অনেক অভিজ্ঞ এবং প্রফেশনাল হতে হবে।

কিভাবে পিপল পার আওয়ার এ সফল ফ্রিলান্সার হিসেবে কাজ করতে পারবেন?

এটা খুবই সহজ কথা। কারণ ইতিমধ্যে আমার ছোট আলোচনার মধ্যে আমি এটা নিয়ে লিখেছি। এককথায় আপনি নিজেকে যত সুন্দরভাবে উপস্থাপন করতে পারবেন তত বেশি আপনার সফল হওয়ার চান্স বেড়ে যাবে। চালুন আমরা কিছু কৌশলঃ

নিজের সম্পর্কে বিস্তারিত লিখাঃ

ফ্রিলান্সার হিসেবে পিপল পার আওয়ারে রেজিষ্ট্রেশন করার সময় আপনাকে নিজের সম্পর্কে আলোচনা করতে হবে। এখানে আপনি নিজেকে এমনভাবে উপস্থাপন করবেন যেন আপনার সম্পর্কে জানার পরে বায়ার বুঝতে পারেন আপনি একজন দক্ষ এবং প্রফেশনাল ফ্রিল্যান্সার।

নিজের প্রোফাইলে ছবি যুক্ত করাঃ

আপনি হয়তো বলবেন প্রোফাইলে ছবি যুক্ত করলে কিভাবে সফলতা আসবে! হ্যাঁ, ছবি যুক্ত করলে আপনি সফল হয়ে যাবেন না, তবে একটা সুন্দর এবং আত্মবিশ্বাস যুক্ত ছবি আপনাকে কাজ পেতে সাহায্য করবে। আপনাকে যদি দেখতে ভালো না লাগে, তাহলে কিভাবে ভাবলেন বায়ার আপনাকে কাজ দিবে।

নিজের পোর্টফলিও তৈরী করুনঃ

বায়ারের বিশ্বাস বৃদ্ধি করতে পোর্টফলিও খুবই গুরুত্বপূর্ণ পার্ট। আমি মনে করি আপনার সফলতার জন্য ভালো পোর্টফলিও বিশেষ ভূমিকা পালন করে। আপনার পোর্টফলিও এমন হওয়া প্রয়োজন, যেন ক্লায়েন্ট আপনাকে কাজ দিতে বাধ্য হয়। অনেকেই যে ভুলটা করে তা হলো, নিজের কাজের নমুনা যুক্ত না করে গুগল বা অন্যকোন সার্চ ইঞ্জিন থেকে ছবি সংগ্রহ করে যুক্ত করে দেন। মূলত এটা কখনও গ্রহণযোগ্য পোর্টফলিও হতে পারে না। সুতরাং এখানে অবশ্যই আপনার পূর্বের কাজের অভিজ্ঞতা শেয়ার করবেন।

আপনাকে কেন কাজ দিবে?

সাধারণত আমরা চাকরির ইন্টারভিউ দিতে গেলে এই প্রশ্নের সম্মুখীন হই। এটা কমন একটা প্রশ্ন যেটা ৯০% ইন্টারভিউতে করা হয়। মূলত এই প্রশ্নের উত্তরের মাধ্যমে যিনি ইন্টারভিউ নেন তিনি আপনার সম্পর্কে সহজে জানতে পারেন এবং কাজ করার জন্য আপনি উপযুক্ত কি-না তাও প্রমাণ করে এই প্রশ্নের উত্তর।

পিপল পার আওয়ারে আপনাকে রেজিষ্ট্রেশন করার সময় ঠিক এই প্রশ্নের উত্তর দিতে হবে। এই প্রশ্নের উত্তর অনেকটা ঠিক দেয় আপনার প্রোফাইল ভেরিফাই করা হবে কি-না। যদি আপনি সঠিকভাবে উত্তর দিতে না পারেন তাহলে আপনার জন্য প্রোফাইল ভেরিফাই করা কষ্টসাধ্য হয়ে যাবে।

এই নিয়মগুলো যদি মেনে আপনি পিপল পার আওয়ারে নিজের প্রোফাইল ভেরিফাই করতে পারেন, তাহলে আপনার জন্য কাজ পাওয়া সহজ হয়ে যাবে। এরপর আপনাকে নিয়মিত কাজের জন্য বিট করতে হবে। আপনার কাজের জন্য যখন বায়ার আপনাকে রিভিউ দিবে তখন আপনি একজন সফল ফ্রিলান্সার হিসেবে দ্রুত পরিচিত হতে পারবেন এবং আপনাকে অন্য বায়াররাও বিশ্বাস করতে শুরু করবে।

Leave a Reply