ঘরোয়া ব্যবসা আইডিয়া
ঘরোয়া ব্যবসা আইডিয়া

কেউ বসে নেই। সবাই কোন না কোনভাবে ইনকাম করছে। ঘরে বসে বিজনেস করা যায় এমন চিন্তা একসময় আমাদের মাথায় আসেনি। কিন্তু এখন অনেকেই ঘরোয়া ব্যবসা করে অর্থনৈতিকভাবে প্রতিষ্ঠিত। অথচ যেটা মানুষের ভাবনায় ছিলো না ঘরে বসে ব্যবসা কিভাবে করে তা নিয়ে। তার মানে এখন মানুষ তাদের চিন্তার বাহিরে গিয়ে কাজ করে সফল হচ্ছে। মনে রাখবেন, ব্যবসা হচ্ছে সম্মানের পেশা। ব্যবসা যত ছোট বা বড় হোক তা কখনও লজ্জাজনক কাজ নয়।

লাভজনক কিছু ঘরোয়া ব্যবসা আইডিয়া
লাভজনক কিছু ঘরোয়া ব্যবসা আইডিয়া

যারা কোন কাজকে ছোট বা বড় করে দেখেন। তারা কখনও সফল হতে পারে না। তাই উদ্যোক্তা হতে চাইলে কখনও এমনটা করা যাবে না।

জেনে নেওয়া যাক কিছু ঘরোয়া ব্যবসা সম্পর্কে:

আমরা আজকে যে ঘরোয়া ব্যবসা আইডিয়া গুলো আপনাদের সাথে শেয়ার করবো। সবগুলো বিজনেস উদ্যোক্তাদের প্রিয়।

০১. ড্রপ শিপিং বিজনেস:

৫-১০ হাজার টাকার পুঁজি নিয়ে এই বিজনেসে কোটি কোটি টাকার পণ্য ও সেবা নিয়ে ব্যবসা করা যায়। তাই এটি সত্যিই অসাধারণ একটা ব্যবসা।

ড্রপ শিপিং বিজনেস শুরু করতে ২টি মৌলিক বিষয়ের প্রয়োজন আছে:

  • ই-কমার্স ওয়েবসাইট
  • ইন্টারন্যাশনাল পেমেন্ট পদ্ধতি।

এগুলোই হচ্ছে এই বিজনেসের জন্য বিনিয়োগ। একজন নতুন উদ্যোক্তা হলেও এই ব্যবসা সুন্দরভাবে পরিচালনা করে সফল হতে পারেন। নতুনদের ক্ষেত্রে একজন ট্রেইনার এক থেকে তিন মাস সাপোর্ট দিলে এই ব্যবসায় ভালো লাভবান হওয়া যাবে। অনেকগুলো সুনামধন্য আন্তর্জাতিক কোম্পানি নতুন উদ্যোক্তাদের ব্যবসা করতে এই সুবিধা দিয়ে যাচ্ছে। এটার সবচেয়ে বড় সুবিধা হচ্ছে আপনি বাংলাদেশে বসে সারাবিশ্ব জুড়েই এই বিজনেস করতে পারেন।

ড্রপ শিপিং বিজনেসে ভালো বেশি মুনাফা আয় করতে চাইলে ভালো কোম্পানির সাথে ব্যবসা শুরু করতে হবে। যার মধ্যে আমাজন এবং শপিফাই হচ্ছে বিশ্বসেরা প্রতিষ্ঠান। প্রতিমাসে ৫০,০০০ থেকে লাখ টাকার বেশি আয় করা সম্ভব এই বিজনেস করে।

০২. রিসেলার বিজনেস আইডিয়া (সেরা ঘরোয়া ব্যবসা):

ঘরোয়া ব্যবসা গুলোর মধ্যে আমার কাছে সবচেয়ে পছন্দের একটা ব্যবসা হচ্ছে রিসেলার। কোনো মূলধন ছাড়াই আপনি ঘরে বসে রিসেলার বিজনেস করতে পারেন। তবে এই ব্যবসায় দ্রুত সফলতা ও গ্রাহকদের বিশ্বস্ততা অর্জনের জন্য একটা ই-কমার্স ওয়েবসাইট খুবই গুরুত্বপূর্ণ। যদি আপনার কাছে ওয়েবসাইটের জন্য বিনিয়োগ করার টাকা না থাকে, তাহলে বিনা বিনিয়োগে এই ব্যবসা শুরু করুন।

ড্রপ শিপিংয়ের মতো এই ব্যবসায় আপনি লাখ লাখ পণ্য ও সেবা নিয়ে বিজনেস করতে পারেন। যার জন্য আপনাকে কোনো টাকা বিনিয়োগ করতে হবে না। বাংলাদেশ থেকে রিসেলার বিজনেস শুরু করতে “শপআপ” হচ্ছে সেরা একটা প্লাটফর্ম। এই ই-কমার্স প্রতিষ্ঠান শপআপের সাথে বাংলাদেশ ব্রাক ব্যাংক এবং ফেসবুক সহ জনপ্রিয় আরও কয়েকটি কোম্পানি পার্টনার হিসেবে আছে। রিসেলার বিজনেস করে মাসে ২০,০০০ থেকে ৫০,০০০ টাকা ঘরে বসে আয় করা সম্ভব।

০৩. অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং বিজনেস আইডিয়া:

আপনি হয়তো এই নামটা অনেকবার শুনেছেন৷ তবে জানিনা এর কাজ কি তা জানেন কি-না। যদি জেনে থাকেন, তাহলে এটা আপনার জন্য প্লাস পয়েন্ট। এটি খুবই লাভজনক একটা ঘরোয়া ব্যবসা আইডিয়া। এটাতে আপনি চাইলেও কোনভাবে লস করতে পারবেন না। মানে এটাতে আপনাদের শতভাগ নিশ্চিত প্রফিট হবে। অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিংয়ের পাশাপাশি এখানে আরও অনেকগুলো উপায়ে ইনকাম করা যায়। যেমনঃ গুগল বিজ্ঞাপন, ডিজিটাল পণ্য বিক্রি ইত্যাদি।

৪ থেকে ৮ হাজার টাকা বিনিয়োগ করে একটা সফল অ্যাফিলিয়েট ওয়েবসাইট দাঁড় করানো যায়। এবং একটা অ্যাফিলিয়েট সাইটে দিনে ২ হাজার ভিজিটর আসলে মাসে ৪০ থেকে ৬০ হাজার টাকা নিশ্চিত আয় করা যায়।

০৪. ফ্রিল্যান্সিং সার্ভিস :

আমরা বিভিন্ন টিভি চ্যানেল ও খবরের কাগজে এদের নিয়ে বিভিন্ন প্রতিবেদন দেখি। কিন্তু কখনও ফ্রিল্যান্সিং কি তা জানার চেষ্টা করেছিলেন? ফ্রিল্যান্সিং হচ্ছে অসাধারণ একটা ব্যবসা। এখানে পণ্য বা সেবা সবকিছু আপনার কাছে থাকবে।

বিশ্বের যেকোনো জায়গা থেকে বায়ার আপনাকে দিয়ে টাকার বিনিময়ে কাজ করিয়ে নিবে। এখানে মূলত আপনি আপনার দক্ষতা বিক্রি করে টাকা কামাই করবেন। যত ভালো সার্ভিস দিতে পারবেন, তত বেশি আপনার আয়ের পরিমাণ বৃদ্ধি পাবে। এই ব্যবসা শুরু করতে কোনো বিনিয়োগের প্রয়োজন নেই। তবে এই পেশায় আপনাকে প্রথম দিকে ধর্য্য ধরে কাজ করতে হবে।

আপনি যদি প্রথম কয়েকজন বায়ারকে সেবা দিয়ে সন্তুষ্ট করতে পারেন, তাহলে আপনি মার্কেটি ধরে ফেলছেন। এরপর থেকে আপনার কাজের অর্ডার আসতেই থাকবে। প্রতিমাসে ফ্রিল্যান্সিং করে লক্ষ লক্ষ টাকা আয় করছে। এমন ফ্রিল্যান্সারদের উদাহরণ হাজার হাজার পাবেন। আপনি অনলাইনে গিয়ে সফল ফ্রিল্যান্সারদের তালিকা লিখে সার্চ করলে প্রমাণ পাবেন।

কিভাবে শুরু করবেন ঘরোয়া ব্যবসা সমূহ?

আমাদের আজকের ঘরোয়া ব্যবসা আইডিয়াগুলো সত্যিই অসাধারণ ছিলো। যেকেউ এই ব্যবসাগুলো ঘরে বসে শুরু করতে পারেন। এক্ষেত্রে অনেকেই জানি প্রিমিয়াম সাপোর্ট চাইবে। তাই আমরা আপনাদের সাহায্য করতে প্রিমিয়াম সাপোর্ট দেওয়ার ব্যবস্থা রেখেছি। কারণ অনেকেই নিজের ওয়েবসাইট তৈরি করতে চাইবেন। বা কিভাবে মার্কেটিং করে আয় করতে তা জানতে চাইবেন।।

এজন্য আপনাদের চাহিদা পূরণ ও সফলতায় ভূমিকা রাখতে। আমাকে মেসেজ করুন।

বিডিব্লগের সমাপ্তি বার্তা:

আমি নিয়মিত ক্যারিয়ার গাইড ও বিজনেস আইডিয়া নিয়ে প্রকাশ করে যাচ্ছি। এরকম আরও আইডিয়া পেতে চাইলে আমাদের কমেন্টে জানা এবং ফেসবুকে ফলো করুন। ধন্যবাদ।

নিচের বাক্সে আপনার মতামত লিখে জানান।